অবশেষে শ্রমিকের পাওনা শোধে শত মিলিয়ন রিয়াল অনুদান সৌদি বাদশাহর

সৌদি আরবে আর্থিক মন্দার কারণে বেশ কিছু কোম্পানি তাদের কর্মচারীদের ৩ থেকে ৭ মাসের বেতন বকেয়া রেখেছে- এমন খবরে বিশেষ উদ্যোগ নিয়েছেন বাদশাহ সালমান বিন আব্দুল আজিজ আল সৌদ।

তিনি শ্রমিকের পাওনা শোধে ১০০ মিলিয়ন সৌদি রিয়াল জমা দিচ্ছেন সরকারের ফান্ডে। এই ফান্ড শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীনে ছাড় করা হবে। শ্রম মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত সকল খরচের হিসাব-নিকাশ দেবে অর্থ মন্ত্রণালয়কে।

কেবল তাই নয়, বাদশাহ বকেয়া বেতন পরিশোধে সৌদি সরকারের নেওয়া পদক্ষেপ নিয়ে শ্রমিক সংশ্লিষ্ট দেশগুলোর প্রতিনিধিদের সঙ্গে আলোচনা করতে শ্রমমন্ত্রীকেও নির্দেশ দিয়েছেন। এমনকি সমস্যা সমাধানে সৌদি আরবের চেষ্টার ব্যাপারগুলো তুলে ধরতে সংস্কৃতি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে কাজ করার জন্যও শ্রম মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

বাদশাহর নির্দেশনা মতো, যেসব শ্রমিক তার নিজের দেশে ফিরে যেতে চায় তাদের সৌদি অ্যারাবিয়ান এয়ারলাইন্সের মাধ্যমে দেশে পাঠানো হবে এবং সে খরচ বহন করবে শ্রমিকের নিয়োগদাতা প্রতিষ্ঠান। শ্রমমন্ত্রী এসব তদারকি করবেন।

এছাড়া শ্রমিকদের পাওনার ব্যাপার স্থানীয় আদালতে সমাধান করতে আইনি সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গেও সমন্বয় করবেন শ্রমমন্ত্রী। দেশে ফিরে যেতে ইচ্ছুক শ্রমিকদের এক্সিট ভিসা ইস্যুসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এবং সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলোর সঙ্গে কাজ করবে পাসপোর্ট বিভাগ।

এদিকে, সৌদি ওজার কোম্পানিতে থাকা বাংলাদেশিরা তাদের ইচ্ছা অনুযায়ী অন্য কোম্পানিতে স্থানান্তর অথবা একেবারে দেশে প্রত্যাবর্তন করার সুযোগ পাচ্ছেন। এজন্য বাংলাদেশিদের তাদের চাহিদার কথা দ্রুত দূতাবাসে জানাতে বলা বলা হয়েছে।

সৌদি আরবের পূর্বাঞ্চলে এই কোম্পানিতে কর্মরত বাংলাদেশি নাগরিকদের দূতাবাসের দোভাষী মোহাম্মদ ফায়সালের সঙ্গে০৫৬৮৩০১৪১৪ নম্বরে যোগাযোগ করতে এবং চাহিদা অনুযায়ী ৩ প্রকারের তালিকা ইমেইলে (faysal333@gmail.com) জরুরি ভিত্তিতে পাঠানোর অনুরোধ জানানো হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ০৫১৫ ঘণ্টা, আগস্ট ০৯, ২০১৬