আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের ‘জিনাত’ সপ্তম স্থানের অধিকারী হয়ে দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন

আমিরাতে নারীদের জন্য “শেইখা ফাতিমা বিনতে মুবারাকা” শিরোনামে অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠান গতকাল (১৮ নভেম্বর) অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আমিরাতে শুধুমাত্র নারীদের জন্য “শেইখা ফাতিমা বিনতে মুবারাকা” শিরোনামে অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার সমাপনী অনুষ্ঠান গতকাল অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে সংযুক্ত আরব আমিরাতের প্রেসিডেন্ট “শেখ খলিফা বিন জায়েদ আল নাহিয়ান”র স্ত্রী “ফাতিমা বিনতে মুবারক” এবং দুবাইয়ের শাসকের স্ত্রী “হিন্দ বিনতে মাকতুম বিনতে জামিয়া আলে মাকতুম” উপস্থিত ছিলেন। সমাপনী অনুষ্ঠানে শুধুমাত্র নারী অতিথিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

সমাপনী অনুষ্ঠান সম্পর্কে ইরানী প্রতিনিধি হান্নানা খালফীর মা “আয়যাম জাদিদী” বলেন: বৃহস্পতিবার (১৭ নভেম্বর) দুবাই অ্যাওয়ার্ড আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার প্রধান “ইব্রাহীম মুহাম্মাদ বুমালহা”র উপস্থিতিতে নারীদের জন্য অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার বিচারকমণ্ডলী, প্রতিযোগিতা সফলভাবে সম্পন্ন করার জন্য যেসকল সরকারী ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠান সহায়তা করেছে, ৩০টির অধিক স্যাটেলাইট নেটওয়ার্ক, আন্তর্জাতিক ও জাতীয় রেডিও ও সংবাদপত্রের কর্মকর্তাদের সম্মাননা প্রদর্শন করা হয়েছে।

তিনি বলেন: আমিরাতে আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার “সুললিত কণ্ঠস্বর” বিভাগে উত্তীর্ণদের নাম বৃহস্পতি বার ঘোষণা করা হয়েছে। “সুললিত কণ্ঠস্বর” বিভাগে মরক্কোর প্রতিনিধি ইমান আল-যাওয়াতানি, আলজেরিয়ার প্রতিনিধি আল-যাহরা হানি‘, ইরানের প্রতিনিধি হান্নানা খালাফী‘, আমিরাতের প্রতিনিধি আমিনা আতিক সুলতান মুহাম্মাদ আল-যাহেরী‘, মৌরিতানিয়ার প্রতিনিধি রোকাইয়া আবিহা‘, মালয়েশিয়ার প্রতিনিধি ফারিয়াহ বিততে জুল কেইফ‘, বাংলাদেশের প্রতিনিধি রোকাইয়া হাসান জিনাতবহরাইনের প্রতিনিধি শিমান শাকের সাইয়্যেদ আহমাদ হেলাল সালামাএবং কুয়েতের প্রতিনিধি ফাতিমা সায়িদ নায়িফ আল-আযামীযথাক্রমে যথাক্রমে প্রথম থেকে নবম স্থানের অধিকারী হয়েছেন।

নারীদের জন্য অনুষ্ঠিত “শেইখা ফাতিমা বিনতে মুবারাকা” প্রতিযোগিতায় বিশ্বের ৭০টি দেশের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেছেন। এরমধ্যে বাংলাদেশের প্রতিনিধি রাফিয়া হাসান জিনাতসপ্তম স্থানের অধিকারী হয়ে দেশের নাম উজ্জ্বল করেছেন।

শেইখা ফাতিমা বিনতে মুবারাকা” শিরোনামে অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতা বিশ্বের ৭০টি দেশের প্রতিনিধির উপস্থিতিতে ৬ নভেম্বর শুরু হয়েছে এবং একাধারে ১৮ নভেম্বর পর্যন্ত অব্যাহত ছিল। নারীদের জন্য অনুষ্ঠিত প্রথম আন্তর্জাতিক কুরআন প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠান দুবাইয়ের বিজ্ঞান ও সংস্কৃতি ক্লাবের মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়েছে।