আমেরিকার সামরিক কলেজে এই প্রথম হিজাবী ছাত্রী

আমেরিকার ভার্মন্ট প্রদেশের নরউইচ সামরিক কলেজে ইউনিফর্মের সাথে হিজাব পরার অনুমোদন পেয়ছেন মুসলিম শিক্ষার্থী ‘সানা হামজা’।

সামরিক পরিবারের ঐতিহ্য বজায় রাখার জন্য সানা হামজার নরউইচ সামরিক কলেজে ভর্তি হওয়ার আকাঙ্ক্ষা ছিল। কলেজের ইউনিফর্মের সাথে হিজাব ব্যবহারের অনুমোদন পেয়ে তার আকাঙ্ক্ষা পূর্ণ হয়েছে।
হামজার দাদী বিমানবাহিনীর কর্মকর্তা, দাদা “পুয়ের্তো রিকো” দ্বীপমালার নৌ কর্মকর্তা এবং তার পিতা ফ্লোরিডার পুলিশ কর্মকর্তা।
হামজা সামরিক অফিসার বিভাগে অধ্যয়ন করার জন্য প্রথমে দক্ষিণ ক্যারোলিনার সীটাদেল বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদন জানান। বিশ্ববিদ্যালয়ে আবেদনের মূল উদ্দেশ্য ছিল, তিনি ইউনিফর্মের সাথে যেন হিজাব ব্যবহার করতে পারেন। সীটাদেল বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃপক্ষ তার আবেদন প্রত্যাখ্যান করে। কিন্তু তিনি হাল না ছেড়ে, নরউইচ কলেজ আবেদন করেন। সেখান তার আবেদন গ্রহণ করে এবং হিজাব সহকারে ক্লাসে উপস্থিত হওয়ার জন্য তাকে স্বাগত জানানো হয়।
সানা হামজা বলেন: যখন আমি ইসলামী হিজাব পরে সমাজে উপস্থিত হয়, তখন সকলে আমাকে শত্রুর দৃষ্টিতে দেখে। এমনকি অনেক সময় অপমানমূলক কথা বলে। তবে এই বিশ্ববিদ্যালয়ে সকলে আমার সাথে ভালো ব্যবহার করে।
সামরিক কলেজ নরউইচ একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয়টি আমেরিকার ভার্মন্ট প্রদেশের নুরুছ ফিল্ড এলাকায় অবস্থিত। আমেরিকান সাহিত্য, বিজ্ঞান ও সামরিক প্রশিক্ষণ বিভাগের সমন্বয়ে ১৮১৯ সালে বিশ্ববিদ্যালয়টি প্রতিষ্ঠিত হয়।
নরউইচ সামরিক কলেজটি আমেরিকার প্রাচীনতম কলেজ। আর এজন্য আমেরিকার ন্যাশনাল ডিফেন্স অধিদপ্তর কর্তৃক ‘রিজার্ভ অফিসার্স ট্রেনিং কিন্ডারগার্টেন’ নামকরণ করা হয়েছে।