এক ডাক্তারের চরম উদারতার গল্প শুনুন – আমাদের দেশে এখনো এমন ডাক্তার আছেন !

ভোলা’র আলোকিত এক ডাক্তার, নাম আনোয়ার হোসেন, ভোলা সদর হসপিটালের… তজুমদ্দিন থানার একজন ডে-লেবার আনোয়ার ডাক্তারের কাছে আসলেন পেটে টিউমার নিয়ে। ডাক্তার সাহেব তার দিকে ভ্রুকুঞ্চন করে বুঝলেন “অপারেশনের দশ হাজার টাকা গরীব রোগীর পক্ষে দেয়া সম্ভব না”।
.
সিভিল সার্জনকে বলে কয়ে রাজী করালেন সদর হসপিটালে অপারেশন করানোর। নিজেই অপারেশন করে ঔষদের টাকাটাও পে করে দিলেন। এখন সেই রোগীও খুশী,ডাঃ আনোয়ারও খুশী।
.
এ ধরনের মানুষদের জন্যই সম্ভবত পৃথিবীটা এখনো টিকে আছে। এসকল আলোকিত লোকদের জন্যই এখনো নির্মল বাতাস বয়।
.
মুক্তিযুদ্ধ থেকে ফিরে এসেই শামছুদ্দিন দিশেহারা। তারই গ্রামের ছেলেপুলে গরীব মানুষরা না খেয়ে অনাহারে অর্ধাহারে এবং বিনা চিকিৎসায় কষ্ট পাচ্ছিলো।
.
কি করবেন তিনি?
.
এগিয়ে এলেন তারই প্রিয় স্ত্রী,স্বামীর হাতে তুলে মোহরানার পুরো টাকা টা প্রতিষ্ঠা করা হলো “সরের হাট কল্যাণী শিশু সদন”
.
এলাকার গরীব বাচ্চাদের জন্য এটা প্রতিষ্ঠা করেই ক্ষান্ত দেন নি, মানুষের পাশে দাঁড়াতেই শিখলেন পল্লী চিকিৎসা। নিজের ১৭ বিঘা জমিও বিক্রি করে দিলেন এতিমখানা ও গরীবদের চিকিৎসার স্বার্থে।
.
একজন মুক্তিযুদ্ধা দেশকেও স্বাধীন করেছেন আবার অন্যের জন্য নিজের ভবিষ্যৎ বিপন্ন করতেও কুণ্ঠিত হচ্ছেন না, ভাবতে পারছেন?
.
কতটা গর্ব করা উচিৎ আমাদের?!!!
.
ডাঃ এড্রিক বেকার।
জন্মসূত্রে বাড়ি নিউজিল্যান্ড হলেও তিনি এখন আমাদের ডাক্তার ভাই।
.
আশির দশকে বাংলদেশে এসেই প্রতিষ্ঠা করেন “কাইলাকুরি হেলথ কেয়ার সেন্টার”
.
ভাবছেন অনেক ব্যয়বহুল চিকিৎসা?
.
মোটেই না! মাত্র পাঁচ টাকায় দেখাতে পারবেন ডাক্তারকে!
.
টাকা নেই? তাতে কি হয়েছে!?
.
ডাক্তার ভাই আপনার হাতে খপ করে ধরে বলবেন- “কি প্রবলেম বলেন তো দেখি?”
.
পঁয়ত্রিশ সিটের ঘরোয়া হসপিটালও আছে। মাত্র একশত টাকায় থাকা খাওয়া ও চিকিৎসা সবই সম্ভব। কারণ বেকার আছেন, ইনি আমাদের ফাদার তেরেসা!
.
প্রতিবছরই যখন অর্থ সংকটে পড়েন, নিউজিল্যান্ড গিয়ে ‘ডোনেশন ফর বাংলাদেশ’ লিখে রাস্তায় নেমে যান, কতটা তাজ্জব ব্যাপার না?
.
এবার আসি লাইভ কিংবদন্তিতে… 🙂
.
দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজের গাইনী ডিপার্টমেন্টের প্রফেসর জাহানারা ও তাঁর স্বামী ডাঃ আফতাব। দুজনেই নিয়েছেন মানবতার কল্যাণার্থে ব্যতিক্রমী উদ্যোগ!
.
জরায়ু বের হয়ে আসা নারীদের অপারেশনের কাজটি করছেন সম্পূর্ণ ফ্রিতে!
.
অপারেশন চার্জ ফ্রি, এনেসথেসিয়া চার্জ ফ্রি, এসিসটেন্ট চার্জ ফ্রি, ওটি চার্জ ফ্রি, প্যাথলজি টেস্ট ফ্রি, বিছানা ভাড়া ফ্রি, ঔষধ ফ্রি!
.
ইতোমধ্যেই পাঁচশত রোগীর অপারেশন করেছেন হাসি মুখে, করতে চান আরো… কেবল রোগী দরকার…
.
আপনি কিংবা আপনার কোন আত্মীয় যদি অসুস্থ থাকে, যোগাযোগ করুন দিনাজপুর মেডিকেল কলেজ মোড়ের সিটি ক্লিনিকে..
.
ইনফরমেশন জানতে চান?অথবা সিরিয়াল দিতে চান?
.
কোনো সমস্যা নেই, ফোন করে দিন +8801712118971, +8801712816234, 052165481 নাম্বারে!
.
ডাক্তারদের কশাই হবার গল্পতো অনেকেই করে…
.
চলুন না…আমরা না হয় ডাক্তারদের এই উদারতার গল্পটাই সবাইকে শেয়ার করি!! (y)