এবার এল আইফোন ৭, পানিরোধী এবং হেডফোন জ্যাক ছাড়াই

বুধবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের স্যান ফ্রান্সিসকোয় স্থানীয় সময় সকাল ১০টায় অ্যাপল সিইও টিম কুক মঞ্চে হাজির হয়ে শুরু করেন বহুল প্রতিক্ষীত কি-নোট। অ্যাপল তাদের নিজস্ব ওয়েবসাইটে এই অনুষ্ঠানের ভিডিও সরাসরি স্ট্রিম করে।

apple7

তবে, বিশ্বের সবচেয়ে স্মার্ট নির্মাতা বলে বহুল বিবেচিত এই প্রতিষ্ঠানটি কিছু বিষয়ে আভাস আর চমক রেখেছে গ্রাহকদের জন্যও।

আইফোন ৭ হবে পানিরোধী। প্লাস মডেল, যেটির পর্দার মাপ সাড়ে ৫ ইঞ্চি, তাতে যোগ করা হয়েছে দুটি পেছনের ক্যামেরা। যদিও গুজব ছিল অ্যাপল সম্ভবত থ্রিডি ভিডিও রেকর্ড করার জন্য দুটি ক্যামেরা রেখেছে। সিইও টিম কুক জানালেন পেছনের দুটি ক্যামেরার একটি ওয়াইড অ্যাঙ্গল এবং অপর ক্যামেরাটি টেলিফটো ছবি তোলার জন্য ব্যবহৃত হবে।

ফোন থেকে ‘ফিজিক্যাল’ হোম বাটন সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এর বদলে চাপ সংবেদনশীল টাচপ্যাডের মতো হোম বাটন যোগ করা হয়েছে।

বলে রাখা ভাল, এই চাপ সংবেদনশীল হোম বাটন বাদে বাকী সব ফিচারই বাজারে প্রতিযোগী বিভিন্ন ফোনে আগেও ছিল। যেমন এলজির একাধিক মডেলে ডুয়াল ক্যামেরা ছিল, স্যামসাং ও সনির তৈরি একাধিক ফোনও পানিরোধী ছিল আগেই।

একটি বিষয় চমক ছিল নতুন মডেলের আইফোনে। সম্ভবত এই প্রথম কোনো মোবাইল ফোনের ক্যামেরায় ‌’র’ ফরম্যাটে ছবি তোলার সুযোগ যোগ হল। খুব সহজ ভাষায় বলা চলে ‘র’ ফরম্যাট হল ক্যামেরায় ধারণ করা আলোর প্রতিটি সংকেত অবিকল সংরক্ষণ করা ফাইল যা থেকে জেপিইজি ছবি তৈরি করা সম্ভব হয়। এই ফরম্যাটের ছবির গুণগত মান উন্নত হওয়ার কারণে পেশাদার আলোকচিত্রীরা এটি পছন্দ করেন এবং এতোদিন উচ্চ ক্ষমতাসম্পন্ন ক্যামেরাতেই এই ফরম্যাটে ছবি তোলার সুযোগ থাকত।

নতুন ফোনে বাড়ানো হয়েছে মেমরি। এবার ২৫৬ গিগাবাইটের মেমরি যোগ করা হয়েছে সর্বোচ্চ ধারণক্ষমতার ফোনে আর নিচের দিকে বাদ দেওয়া হয়েছে ১৬ গিগাবাইটের মডেল। পেছনের ক্যামেরায় রেজুলিউশন থাকছে ১২ মেগাপিক্সেলই, তবে বাড়ানো হয়েছে অ্যাপারচার, যার ফলে স্বল্প আলোতেও ভালো মানের ছবি তোলা সম্ভব হবে। সামনের ক্যামেরায় যেখানে আগে ৫ মেগাপিক্সেল ক্ষমতা ছিল সেটি বাড়িয়ে ৭ মেগাপিক্সেল করা হয়েছে।

অনুষ্ঠানে আইফোনের পাশাপাশি অ্যাপল ওয়াচের নতুন সংস্করণও ঘোষণা করে প্রতিষ্ঠানটি।