কালোবাজারে কত দামে বিক্রি হয় মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ?

মানুষ কতটা নিচে নামলে মানুষের অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ নিয়ে এই ভয়ানক ব্যবসা করতে পারে সেটা কল্পনা করা যায় না। কিন্তু প্রায় বিশ্বব্যাপী কমবেশি এই ব্যবসা চলে। কালোবাজারে বিক্রি হয়ে যায় লিভার থেকে শুরু করে হৃৎপিণ্ড।

প্রত্যঙ্গের কালোবাজারি বন্ধ করতে সবক’টি দেশের সরকার মরিয়া। কিন্তু থামানো যাচ্ছে না এই চক্রকে। এই বাজারকে অবশ্য ‘ব্ল্যাক মার্কেট’ বলা হয় না। এই বাজার পরিচিত ‘রেড মার্কেট’ হিসেবে। ঠিকঠাক ‘ডিল’ করতে পারলে, এই ব্যবসায় বিপুল মুনাফা বলে জানা গেছে।

মার্কিন গোয়েন্দা দপ্তর এফবিআই সূত্রে যে খবর এসেছে, তাতে মানবশরীরের বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের দাম বেশ চড়া এই বাজারে। সেই সব দাম যোগ করলে তা দাঁড়াবে প্রায় সাড়ে তিন কোটি টাকা!

১. কিডনি : কালোবাজারে সবথেকে বেশি চাহিদা কিডনির। জীবিত মানুষের কিডনি হলে দাম মোটামুটি ১,৩৪,১৯,২৯০ টাকা। মৃত মানুষের কিডনি হলে সেই দাম ১০,০৬,৪৪৬ টাকা – ১,৬৭,৭৪,১১২ টাকা।

২. লিভার : ১,০৭,৩৫,৪৩২ টাকা

৩. চোখ : ১,০২,৩২২ টাকা।

৪. বোন ম্যারো : ১৫,৪৩,২১৮ টাকা।

৫. হৃৎপিণ্ড : ৭৯,৮৪,৪৭৭ টাকা।

৬. গল ব্লাডার : ৮১,৭৯০ টাকা

৭. ডিম্বাণু : মোটামুটি দাম ৮,৩৮,৭০৫ টাকা।

৮. রক্ত : ১,৬৭৭ – ২২,৮১২ টাকা।

৯. করোনারি আর্টারি : ১,০২,৩২২ টাকা

১০. ক্ষুদ্রান্ত্র : ১,৬৯,০১৫ টাকা।