কুমিল্লায় বাসে পেট্রলবোমায় দগ্ধ ১২, নিহত ৭

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রাম উপজেলার জগমোহনপুর এলাকায় পেট্রলবোমার আগুনে পুড়ে ঘটনাস্থলে ৭ বাসযাত্রী নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১২ জন। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে। সোমবার রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। কুমিল্লা ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক মনির হোসেন জানান, কক্সবাজার থেকে ঢাকাগামী আইকন পরিবহনের একটি বাসে (ঢাকা-মেট্রো ব-১৪-৪০৮০) দুর্বৃত্তরা পেট্রলবোমা ছুড়ে মারে। এতে বাসটিতে আগুন ধরে যায়। কুমিল্লা ও চৌদ্দগ্রাম ফায়ার সার্ভিসের ৪টি ইউনিট ঘটনাস্থলে গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। ঘটনার সঙ্গে সঙ্গে কিছু যাত্রী জানালা দিয়ে লাফিয়ে নেমে আত্মরক্ষা করতে পাড়লেও এরই মধ্যে পুড়ে মারা যায় ৭ যাত্রী ।
আহতদের উদ্ধার করে প্রথমে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরে সেখান থেকে কুমিল্লা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। পরে দগ্ধ ১১ জনকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে কুমিল্লা মেডিক্যালের পরিচালক হাবিব আব্দুল্লাহ সোহেল জানিয়েছেন। এদের মধ্যে তিনজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তাদের শরীরের ৭০ শতাংশ পুড়ে গেছে বলে জানান তিনি। এদিকে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন কুমিল্লার পুলিশ সুপার টুটুল চক্রবর্তী। মিয়ারবাজার মহাসড়ক ফাড়ির ইনচার্জ নাজিম উদ্দিন জানান, নিহতদের পরিচয় এখনও পাওয়া যায়নি। নিহতের সংখ্যা আরো বাড়তে পারে। আগুনে পুড়ে যাওয়া বাসটি র‌্যাকার দিয়ে সরিয়ে নেওয়া হয়েছে।
বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া গত ৫ জানুয়ারি ঢাকায় সমাবেশ করতে না পেরে সারা দেশে লাগাতার অবরোধের ডাক দেন। এর ফাঁকে ফাঁকে হরতালের ঘোষণা আসছে বিএনপি-জামায়াত জোটের পক্ষ থেকে। সর্বশেষ রবিবার ভোর থেকে সারা দেশে ৭২ ঘণ্টার হরতাল করছে তারা। হরতাল-অবরোধে গাড়িতে আগুনে এবং পেট্রলবোমায় দগ্ধ হয়ে নিহতের সংখ্যা অর্ধশত ছাড়িয়েছে। এ ছাড়া আগুনে পুড়ে ও বোমায় দগ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন শতাধিক মানুষ, যাদের বেশ কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

Leave a Reply

Your email address will not be published.