নামায পড়ার জন্য ছেলেকে শাসন করতে গিয়ে খুন হলেন বৃদ্ধ বাবা

কুমিল্লার বরুড়ায় উপজেলার শিলমুড়ি দক্ষিণ ইউনিয়নের জয়াগ গ্রামে ছেলেকে নামাজ পড়তে বলা নিয়ে কথা কাটাকাটির জের ধরে ছেলের হাতের ধাড়ালো ছুরির আঘাতে নির্মমভাবে খুন হয়েছেন এক হতভাগ্য এক বাবা । এঘটনায় বুধবার(২৬ আগষ্ট ২০১৫) নিহতে বড় ছেলে বাদী হয়ে মামলা ধায়ের করেছে।
জানা যায়, জয়াগ গ্রামের মৃত-আব্দুল হামিদের পুত্র মোঃ আব্দুর রব (৭৫) তার ছেলে মোঃ জুয়েল (১৫) কে মঙ্গলবার রাতে এশার নামাজ পড়তে বললে এ নিয়ে বাবা ও ছেলের সাথে কথা কাটাকাটি হয় এক পর্যায় ছেলে বাবাকে ছুরি দিয়ে বুকের ডান পাশে আঘাত করে। তার চিৎকারে পাশে ঘরে নাছরিন নামের পুত্র বধূ এসে দেখে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে আছে আব্দুর রব। তার চিৎকারে আশ-পাশের বাড়ির লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে বরুড়া সরকারী হাসপাতালে নিয়ে আসলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।নিহত আব্দুর রব এর বড় ছেলে জয়নাল আবেদীন জানান, আমার ছোট ভাই গত এক সপ্তাহ আগে বিশ্বরোডের পেপসি কোম্পানীর একটি গাড়ীতে হেলফার হিসেবে চাকুরী নেয়। প্রতিদিন ডিওটি শেষ করে রাতে বাড়ীতে আসে।মঙ্গলবার রাতে বাড়ীতে আসলে আমার বাবা তাকে নামাজ পড়ার জন্য বলে এ নিয়ে কথা কাটাকাটি জের ধরে বাবাকে ছুরি দিয়ে আঘাত করে পালিয়ে যায়।
এদিকে নিহতের ভাই আব্দুল হক জানান, আমরা ৬ ভাইয়ের মধ্যে নিহত আব্দুর রব বড়। আমার ভাই দীর্ঘদিন যাবৎ কিডনী রোগে ভুগছিলেন। আমি আমার ভাইয়ের হত্যার বিচার চাই। নিহত আব্দুর রব পেশায় কৃষক হলেও সে সব সময় নামাজ পড়তেন। নিহতের ২ ছেলে ২ মেয়ে রয়েছে।
এ ঘটনায় নিহতের বড় ছেলে জয়নাল আবেদীন বাদী হয়ে একজনকে আসামী করে হত্যা মামলা দায়ের করেছে।
পুলিশ সুত্রে জানা যায়,লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে প্রেরণ করে করেছে বড়–রা থানা পুলিশ বুধবার । এ ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য সৃষ্টি হয়েছে, ঘাতক জুয়েলকে গ্রেপ্তার করতে পুলিশ অভিযান চালাচ্ছে।