পরীক্ষার হলে গিয়ে শিক্ষার্থীরা জানল প্রশ্নপত্র নেই !

পরীক্ষা নেওয়ার দায়িত্ব কাউকে না দিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের পালি বিভাগের তৃতীয় বর্ষের পরীক্ষা কমিটির চেয়ারম্যান ঘুরছেন আমেরিকা আর কানাডায়। তিনি অধ্যাপক ড. জিন বোধি ভিক্ষু। বিভাগটির নিয়মিত চেয়ারম্যানও।

দায়িত্ব বুঝিয়ে না দেওয়ার পরীক্ষা কমিটির অন্য দুই সদস্য রোববারের পূর্বনির্ধারিত পরীক্ষা নিতে পারেননি। অথচ পরীক্ষা দেওয়ার জন্য বিভাগে এসেছিলেন ৪৩ জন শিক্ষার্থী।

পরীক্ষা কমিটির অন্য সদস্যদের দাবি কমিটির চেয়ারম্যান বিদেশ সফরে যাওয়ার আগে তাদের পরীক্ষা নেওয়ার দায়িত্ব বুঝিয়ে দেননি। দিয়ে যাননি সংশ্লিষ্ট কোর্সের প্রশ্নপত্রও। ফলে সম্ভব হয়নি পরীক্ষা নেওয়া।

বিভাগের শিক্ষকদের এমন রেশারেশির দায় দিয়েছেন পরীক্ষার্থীরা। তারা বৃষ্টি উপেক্ষা করে ক্যাম্পাসে পরীক্ষা দিতে এসে ফিরেছেন পরীক্ষা না দিয়েই। কোনো ঘোষণা না দিয়ে এভাবে পরীক্ষা না নেওয়ায় শিক্ষার্থীরা বিরূপ প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন।

পালি বিভাগ সূত্র জানায়, রমজান ও ঈদের বন্ধ শেষে বিশ্ববিদ্যালয় খোলার প্রথমদিন অর্থাৎ রোববার (১৭ জুলাই) সকাল ১০টা থেকে বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ৩০৫ নম্বর কোর্সের (নন ক্লেরিক্যাল পালি লিটারেচার) পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল। পরীক্ষায় অংশ নিতে পরীক্ষার্থীরা ১০ টার আগেই বিভাগে উপস্থিত হন। কিন্তু নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা শুরু না হওয়ায় শিক্ষার্থীরা অন্য শিক্ষকদের সঙ্গে যোগাযোগ করলে রোববার পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে না বলে জানিয়ে দেন তারা।

বিভাগের কয়েকজন শিক্ষক জানান, বিভাগীয় সভাপতি ও তৃতীয় বর্ষ পরীক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. জিন বোধি ভিক্ষু গত ৭ কিংবা ৮ জুলাই আমেরিকা ও কানাডায় সেমিনারে যোগ দেওয়ার জন্য দেশ ছাড়েন। দেশ ছাড়ার আগে তিনি বিভাগের সহকারী অধ্যাপক অরূপ বড়ুয়াকে ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্ব দিয়ে যান। আগামী ১৯ জুলাই তার দেশে আসার কথা। কিন্তু এর আগে ১৭ জুলাই (রোববার) বিভাগের তৃতীয় বর্ষের পূর্বনির্ধারিত পরীক্ষা থাকলেও সে পরীক্ষার বিষয়ে তিনি কাউকে দায়িত্ব দিয়ে যান নি।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিভাগের তৃতীয় বর্ষের বেশ কয়েকজন শিক্ষার্থী বাংলানিউজকে বলেন, পরীক্ষা কমিটির সভাপতি ১৯ জুলাই দেশে আসবেন, অথচ এর আগে ১৭ জুলাই আমাদের পরীক্ষা আছে তা তার মনে থাকল না। ফলে কাউকে দায়িত্বও দিয়ে গেলেন না, অন্যরাও দায়িত্ব বুঝে নিলেন না। এ কেমন কথা। পরীক্ষার হলে গিয়ে জানতে পারি প্রশ্নপত্র নেই। প্রশ্নপত্র বিদেশ সফররত বিভাগীয় সভাপতির কাছে। আমাদের নিয়ে যা ইচ্ছে তাই করছেন শিক্ষকরা।

বিভাগের তৃতীয় বর্ষ পরীক্ষা কমিটির অন্য দুই সদস্য হলেন, বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি অরূপ বড়ুয়া ও সহকারী অধ্যাপক সুদীপ্তা বড়ুয়া।

কোনো ঘোষণা ছাড়াই পূর্বনির্ধারিত পরীক্ষা না নেওয়ার বিষয়ে জানতে চাইলে বিভাগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি ও পরীক্ষা কমিটির সদস্য অরূপ বড়ুয়া বাংলানিউজকে বলেন, ‘বিভাগীয় সভাপতি ও পরীক্ষা কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. জিন বোধি স্যার হয়তো ভুলে কাউকে দায়িত্ব দিয়ে যান নি। তবুও আমরা পরীক্ষা নিয়ে ফেলতে পারতাম।কিন্তু উনি আমাদের পরীক্ষার প্রশ্ন দিয়ে যাননি। ফলে পরীক্ষাটি আমরা নিতে পারিনি। স্যার দেশে আসার পর এই পরীক্ষার পুনরায় তারিখ ঘোষণা করা হবে।’

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. কামরুল হুদা বলেন, এ বিষয়ে অভিযোগ পেলে কার্যকর ব্যবস্থা নেবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।