পেট জোড়ালাগা সেই দুই শিশুর শীঘ্রই অস্ত্রোপচার করা হবে

চুয়াডাঙ্গার জীবননগরে জন্ম নেয়া জোড়ালাগা যমজ দুই বোন হাসি-খুশিকে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে আলাদা করতে ঢাকায় আনা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় পেট জোড়ালাগা শিশু দুটিকে তার পরিবার অ্যাম্বুলেন্সযোগে ঢাকা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালে নেয়।

বুধবার জীবননগর শহরের আদর্শ ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং হোমে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে মা সীমা খাতুন (২০) জোড়া লাগা বিরল এ যমজ দুই কন্যা শিশুর জন্ম দেন। সীমা জীবননগর উপজেলার গয়েশপুর গ্রামের মুদি দোকানি মুকুল মিয়ার স্ত্রী।

আদর্শ ক্লিনিক অ্যান্ড নার্সিং হোমের ডা. মাহমুদ বিন হেদায়েত সেতু জানান, দুই শিশুর বুকের সিনা হতে নাভি পর্যন্ত জোড়া লাগানো। দুটি মাথা, দুটি পা, দুটি হাত ও আদালা যৌনাঙ্গ নিয়ে জন্ম নেয়া দুই বোনকে তাদের পক্ষে আলাদা করা সম্ভব নয়। এ অবস্থায় তিনি তাদেরকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পরামর্শ দেন।

তিনি আরও জানান, এমন শিশু জন্মের ঘটনা বিশ্বে খুবই বিরল। এ রোগের নাম কনজয়েন্ট টুইন। দুজনকে আলাদা করতে হলে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের পরামর্শ নিতে হবে। এর জন্য বিপুল অংকের অর্থেরও প্রয়োজন।

সদ্যজাত হাশি-খুশির নানা বাদল মিয়া জানান, তিনি একজন দরিদ্র কৃষক, অন্যদিকে জামাতা মুকুল ক্ষুদ্র একজন মুদি দোকানি। যমজ হাসি-খুশিকে আলাদা করতে ব্যয়বহুল চিকিৎসার প্রয়োজন বলে চিকিৎসক জানিয়েছেন। যা তাদের পক্ষে যোগাড় করা কোনোভাবেই সম্ভব নয়। এ জন্য তিনি সরকারের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।