বাংলাদেশ সরকারের পক্ষ থেকে ৩৪ কোম্পানির ওষুধ না কেনার পরামর্শ

গুণগত মান সঠিক না থাকায় ৩৪ কোম্পানির ওষুধ কেনা থেকে বিরত থাকতে জনসাধারণের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে সরকারের ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

বুধবার রাজধানীর মহাখালীতে অধিদপ্তরের কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালক মেজর জেনারেল মোস্তাফিজুর রহমান এ আহ্বান জানান।

জনসাধারণকে সতর্ক করে তিনি বলেন, সর্বোচ্চ আদালতের নির্দেশের পরিপ্রেক্ষিতে ২০টি ওষুধ উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানের সব ধরনের ওষুধ উৎপাদন বন্ধ করা হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের কোনো ওষুধ বাজারে পাওয়া গেলে তা না কেনার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

উৎপাদন বন্ধে নির্দেশপ্রাপ্ত ২০ কোম্পানি : এক্সিম ফার্মাসিউটিক্যালস, এভার্ট ফার্মা লিমিটেড, বিকল্প ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ডলফিন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ড্রাগল্যান্ড লিমিটেড, গ্লোব ল্যাবরেটরিজ (প্রাইভেট) লিমিটেড, জলপা ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, কাফমা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মেডিকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ন্যাশনাল ড্রাগ ফার্মা লিমিটেড, নর্থ বেঙ্গল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, রিমো কেমিক্যালস লিমিটেড (ফার্মা ডিভিশন), রিড ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্কাইল্যাব ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্পার্ক ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, স্টার ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, সুনিপুণ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, টুডে ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ট্রপিক্যাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড এবং ইউনিভার্সেল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

এ ছাড়া ১৪ কোম্পানির সব ধরনের অ্যান্টিবায়োটিক (নন-পেনিসিলিন, পেনিসিলিন ও সেফালোস্পরিন) জাতীয় ওষুধের উৎপাদনও বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এসব কোম্পানির ওষুধও না কেনার জন্য জনসাধারণকে পরামর্শ দিয়েছে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তর।

অ্যান্টিবায়োটিক উৎপাদন বন্ধে নির্দেশপ্রাপ্ত ১৪ কোম্পানি: আদ-দ্বীন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, আলকাদ ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, বেলসেন ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, বেঙ্গল ড্রাগস অ্যান্ড কেমিক্যালস (ফার্মা) লিমিটেড, ব্রিস্টল ফার্মা লিমিটেড, ক্রিস্টাল ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ইন্দো-বাংলা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, মিল্লাত ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, এমএসটি ফার্মা অ্যান্ড হেলথকেয়ার লিমিটেড, অরবিট ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড, ফার্মিক ল্যাবরেটরিজ লিমিটেড, ফনিক্স কেমিক্যাল ল্যাবরেটরি লিমিটেড, রাসা ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড ও সেভ ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড।

অনুষ্ঠানে ওষুধ প্রশাসন অধিদপ্তরের পরিচালক অধ্যাপক মো. রুহুল আমিনসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।