“বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ ‘হারমোনি অব দ্য সিস’।

“বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ ‘হারমোনি অব দ্য সিস’। বিস্ময়কর এ জাহাজ টাইটানিকের চেয়েও বড় ৩০৬ ফুট। দৈত্যাকার জাহাজটি সমুদ্রের বুকে যেন এক ভাসমান শহর। ১১৮৮ ফুট দৈর্ঘ্য ও ২১৫.৫ ফুট প্রস্থের জাহাজটি দশতলা উঁচু ভবনের সমান। জাহাজটিতে আছে ১৮টি ডেক ও চারটি ফুটবল খেলার মাঠ। ২ লাখ ২৭ হাজার টন ওজনের এ জাহাজে যাত্রী ধরবে ৬৭৮০ জন। আর এটি নির্মাণে লেগেছে ৮০০ মিলিয়িন পাউন্ড।

বাংলাদেশি মুদ্রায় এর মূল্যমান ৯ হাজার ৬০০ কোটি টাকা। হারমোনি অব দ্য সিস ফ্রান্সের সেন্ট-নাজাইরি থেকে ১৭ মে সকাল ৬টায় লন্ডনের ইংলিশ চ্যানেল পাড়ি দিয়ে সাউদাম্পটনে পৌঁছেছে। উৎসুক জনতা জাহাজটি দেখতে ভিড় জমিয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের রয়েল ক্যারিবিয়ান ইন্টারন্যাশনাল কোম্পানি জাহাজটি তৈরি করেছে। এতে আছে ২০টি ক্যান্টিন, ২৩টি সুইমিংপুল ও ৫২টি গাছ, ক্যাসিনো, ২৭৪৭টি কেবিন ও নানান সুযোগ-সু্বিধা। জাহাজের নাবিক আছে ২১০০ জন। বিশ্বের সবচেয়ে বড় জাহাজ হারমোনি অব দ্য সিস।

জাহাজটি এখন সাউদাম্পটনের ঘাটে বাঁধা আছে। সেখান থেকে জাহাজটি প্রথম যাত্রা করবে। জাহাজটি তৈরি করতে সময় লেগেছে ২ বছর ৮ মাস। রোদ্রজ্জ্বল ছবিতে হারমোনি অব দ্য সিস। জাহাজটির ওজন ২ লাখ ২৭ হাজার টন।প্রথম যাত্রায় সমুদ্র উপকূলের নান্দনিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে হাজার হাজার মানুষ ভিড় করেছে। প্রথম ভ্রমণটি অবশ্য বিনা টিকিটেই করতে পারবেন যাত্রীরা। এরপর পর থেকে যাত্রীদের টিকিট কিনতে হবে। গেল শনিবার লন্ডনের সাউদাম্পটন থেকে নেদারল্যান্ডের রটারডাম পর্যন্ত চারদিনের একটি ভ্রমণের আয়োজন করেছে জাহাজ কর্তৃপক্ষ।

আগামী ২৯ মে জাহাজটি বার্সেলোনা ভ্রমণের মাধ্যমে প্রথম বাণিজ্যিক ভ্রমণ শুরু করবে। এ যাত্রায় ৩৪ দিনে বার্সেলোনা পৌঁছাবে জাহাজটি। শরৎকালে জাহাজটির রুট হবে যুক্তরাষ্টের ফ্লোরিডা হয়ে ভূমধ্যসাগরের কাছাকাছি দেশগুলো। আর শীতকালে ক্যারিবিয়ান দেশগুলো। জাহাজটি ৭৭টি দেশ থেকে যাত্রী তুলতে পারবে।এমন একটি জাহাজ যা শুধু যাত্রীই বহন করে না, সমুদ্রের সৌন্দর্যও বাড়ায়। টাইটানিক এর কাছে একটি মাছের পোনার মতো। জাহাজটির নিরাপত্তায় রয়েছে বিপুল সংখ্যক পুলিশ। বিশাল ১০ তলা রাক্ষুসে জাহাজ।

ছবিটি জাহাজের পেছন দিক থেকে তোলা।পুরো জাহাজটি ঘুরে মার্ক পামার নামের এক সাংবাদিক বলেন, “আমি এখন জাহাজটির ১৭ নম্বর কেবিনে দাঁড়িয়ে আছি। এত বড় জাহাজ দেখে আমি অভিভূত। চারিদিকে স্বচ্ছ কাঁচের দেয়াল, মাঝে মাঝে পরিস্কার স্টিল চোখ জুড়িয়ে দেয়।‘সবার আগে ক্যারিবিয়ান ইন্টারন্যাশনাল জাহাজটি ভ্রমণের জন্য আমাকে অভ্যর্থনা জানায়।


ভালো লাগলে শেয়ার করুন।