ভালোবেসে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলো মেডিকেল কলেজের ৫ম বর্ষের ছাত্রী,অতঃপর….

নাটোরের বাগাতিপাড়া থানাধীন গালিমপুর গ্রামের রায় পরিবারের মেয়ে পৃথ্বী রায়। ডাক নাম মৌলি। মা বাবার আদরের কন্যা।

একমাত্র বড় ভাই মনোদীপ রায় ঢাকার আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন চিকিৎসক। বাবা যুগ্মসচিব মলয় কুমার রায়। ডিভিশনাল ডিরেক্টর, হেল্থ এ্যান্ড ফ্যামিলি প্ল্যানিং- রাজশাহী।

পৃথ্বী রায় মৌলি বর্তমানে বগুড়ার টিএমএসএস মেডিকেল কলেজে এমবিবিএস পড়ছেন, চতুর্থ বর্ষ শেষ করে এবার ৫ম বর্ষের ছাত্রী।

পৃথ্বী রায় মৌলির এক খালাত ভাইয়ের বিয়েতে প্রথম পৃথ্বীর পরিচয় হয় রুদ্র নামের একটি ছেলের সাথে। যিনি পেশায় একটি বেসরকারী টেলিভিশনের সাংবাদিক। রুদ্র পরিবার নিয়ে ঢাকাতেই বসবাস করেন।

তারপর থেকেই আস্তে আস্তে দুজনের জানাশুনা এবং প্রেম। তারপর, সব জল্পনা কল্পনা আর দূরত্বের অবসান ঘটিয়ে ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৬ মৌলি সব ফেলে ছুটে আসে রুদ্রর কাছে। রুদ্রের পরিবারও মৌলিকে গ্রহণ করে পরম যত্নে।

২৩ সেপ্টেম্বর সেচ্ছায় নিজ ধর্মত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করে মৌলি। তাঁর নতুন নাম হয় ‘রেহনুমা অনিষা মাহমুদ’। রুদ্রের পরিবারের সম্মতিক্রমেই মৌলি এবং রুদ্রের বিয়ে হয়।

ধর্ম কখনো ভালবাসায় বাধা হতে পারেনা, বরং ভালবাসা পারে দুটি ভিন্ন ধর্মের মধ্যে বন্ধন তৈরি করতে। রুদ্র এবং রেহনুমা (মৌলি) তার প্রমান।

শুভকামনা রইলো তাদের জন্য এবং শান্তির ধর্মে বোনটিকে স্বাগতম

সুত্রঃ অনলাইন