মুসলিম মনে করে এবার শিখকে হেনস্থা

যুক্তরাষ্ট্রে এক শিখ যুবককে মুসলিম ভেবে চরম হেনস্থা করেছে এক দোকানি। আর তা চুপ করে দাঁড়িয়ে দেখেছে উপস্থিত সবাই। ডোনাল্ড ট্রাম্প প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয়লাভ করার পর থেকে আমেরিকায় ২০০টিরও বেশি বিদ্বেষ ও হেনস্থার ঘটনার প্রকাশ্যে এসেছে।

২২ বছরের তরুণ শিখ হরমান সিং ঐতিহ্যবাহী হার্ভার্ড ল স্কুলের প্রথম বর্ষের ছাত্র। ক্যাম্পাসের কাছেই কেমব্রিজে তিনি একটি স্টোরে গিয়েছিলেন শপিং করতে। কেনাকাটা করতে করতেই ফোনে মায়ের সঙ্গে কথা বলছিলেন। ঠিক সেই সময় একজন স্টোরের কেরাণিকে ডেকে বলেন, ‘ওই দ্যাখো! ওখানে একজন মুসলিম।’ এরপরই ওই কেরাণির চূড়ান্ত হেনস্থার শিকার হন হরমান।

বোস্টন গ্লোবে নিজের অভিজ্ঞতা শেয়ার করে তিনি লিখেছেন, ‘যিনি আমাকে ক্ষতিকারক মুসলিম বলে ডাকেন, তিনি একেবারে আমার সামনে এসে দাঁড়ান। আমাকে টানা ফলো করতে থাকেন। আমার নাম কী, আমার কোথায় জন্ম – সন্ধিগ্ধ প্রশ্নে জেরবার হয়ে যাই। সবাই সব দেখছিল কিন্তু কেউ কিছু করছিল না। লোকটা আমার গা ঘেঁসে দাঁড়াচ্ছিল। আমি তখন মায়ের সঙ্গে কথা বলছিলাম। তিনিও সব শুনেছেন। দুজনেই আমার নিরাপত্তার কথা ভেবে চিন্তিত হয়ে পড়ি।’

হরমান ওই স্টোরকর্মীকে জানিয়েছিলেন, তিনি নিউ ইয়র্কের বাসিন্দা। লোকটির কোনো সাহায্যের প্রয়োজন কি না, তাও জিজ্ঞেস করেছিলেন তিনি। উত্তর না পেয়ে আতঙ্কে তড়িঘড়ি সেখান থেকে সরে পড়েন হরমান।

পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক ওই স্টোরের মালিক বোস্টন ডট কমকে নির্দ্বিধায় বলেন, ‘আমি জানি না, ছেলেটা কোথা থেকে এসেছিল। তবে, আমি আশা করব ওকে আমায় আর কোনো দিন দেখতে হবে না।’