শেষ পর্যন্ত প্রেসিডেন্ট পুতিনকে হত্যার পরিকল্পনায় এক মহিলা

রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনকে হত্যা চেষ্টার দায়ে চেচেন সেনা আদম ওসমায়েভকে খুঁজছিল মস্কো৷ ইউক্রেনে ওসমায়েভের উপর হামলায় তার স্ত্রী নিহত হয়েছে৷ খবর ডয়চে ভেলের।

ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা সোমবার জানিয়েছেন, আদম ওসমায়েভ এবং তার স্ত্রী আমিনা অকুয়েভা হামলার সময় তাদের গাড়িতে ছিলেন৷ গাড়িটি ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভের বাইরে একটি রেলক্রসিংয়ের কাছে ছিল৷

ক্রসিংয়ের পাশে থাকা ঝোপ থেকে তাদের লক্ষ করে গুলি চালানো হয়৷ এতে ওসমায়েভের স্ত্রী আমিনা অকুয়েভা প্রাণ হারান৷ আর ওসমায়েভ আহত হন৷ ইউক্রেনের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আমিনার নিহত হওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন৷ আমিনা ইউক্রেনের নাগরিক ছিলেন৷

২০১২ সালে একটি বোমা হামলা চালিয়ে রাশিয়ার বর্তমান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুটিনকে হত্যার চেষ্টা চালিয়েছিলেন ওসমায়েভ৷ ঐ ঘটনায় ইউক্রেনের কারাগারে প্রায় আড়াই বছর বন্দি ছিলেন ওসমায়েভ৷ তবে তার বিচার করতে তাকে ইউক্রেন থেকে বিতাড়নের দাবি জানিয়ে আসছিল মস্কো৷

ওসমায়েভ ও আমিনা ইউক্রেনে বেশ পরিচিত৷ তারা দুজনেই পূর্ব ইউক্রেনে রাশিয়াপন্থী বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে ইউক্রেনের সরকারি বাহিনীর পাশাপাশি লড়েছেন৷

এর আগে, জুন মাসেও ওসমায়েভকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল৷ তবে সেই সময় স্ত্রী আমিনা উলটো বন্দুকধারীর দিকে গুলি চালিয়েছিলেন৷

এদিকে, গত বৃহস্পতিবার কিয়েভে এক বোমা হামলায় দুই ব্যক্তি নিহত হয়েছেন৷ আহত হয়েছেন তিন জন৷ এর মধ্যে একজন ইউক্রেনের সাংসদ ইহোর মোসিয়েচুক৷ আমিনা মোসিয়েচুকের উপদেষ্টা হিসেবে কাজ করতেন৷

বোমা হামলার জন্য মোসিয়েচুক রাশিয়াকে দায়ী করেছেন৷ ইউক্রেনের পুলিশও জানিয়েছে, তারা বোমা হামলার সঙ্গে মস্কোর যোগসূত্র থাকার বিষয়টিও তদন্ত করে দেখছেন৷ তবে রাশিয়া এই অভিযোগ অস্বীকার করেছে৷

ভারতে ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ ভারতের পশ্চিমাঞ্চলীয় রাজস্থান রাজ্যে একটি ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণে মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ জনে দাঁড়িয়েছে। বুধবার কর্মকর্তারা একথা জানান। খবর সিনহুয়ার।

স্থানীয় সরকারের এক কর্মকর্তা জানান,মঙ্গলবার রাজস্থানের রাজধানী জয়পুর নগরীর কাছে শাহপুরার খাতলই গ্রামে একটি ট্রান্সফর্মার বিস্ফোরণে ঘটনাস্থলেই চারজন নিহত ও ১৭ জন আহত হয়। দুর্বল ব্যবস্থাপনার কারণে এটির বিস্ফোরণ ঘটে।

আহতদের এসএমএস হাসপাতালে নেয়া হলে রাতে আরো ১০ জনের মৃত্যু হয়। এতে বিস্ফোরণের ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ১৪ জনে দাঁড়ায়।

এ ঘটনায় এখনো সাতজন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে। কর্মকর্তরা জানান, একটি বিবাহ অনুষ্ঠানে বিদ্যুতের আলো নেয়ার জন্য কাজ করার সময় ট্রান্সফর্মারের বিস্ফোরণ ঘটে।

রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী বসুন্ধরা রাজে এ ঘটনায় উচ্চ পর্যায়ের তদন্তের কথা বলেছেন এবং নিহতদের প্রতি গভীর শোক জানিয়েছেন। এমটিনিউজ