সারা দেশের খতিবদের প্রতি মাওলানা ফরীদউদ্দীন মাসঊদের খোলা চিঠি

কিশোরগঞ্জের শোলাকিয়ার খতিব এবং দেশের অন্যতম শীর্ষ আলেম মাওলানা ফরীদউদ্দীন মাসঊদ ইমাম ও খতিবদের প্রতি একটি খোলা চিঠি দিয়েছেন। বুধবার গণমাধ্যমে পাঠানো এই চিঠিতে তিনি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে সবাইকে সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তার সেই খোলা চিঠিটি এখানে হুবহু তুলে ধরা হলো:

আসসালামু আলাইকুম ওয়া রহমাতুল্লাহ!

মুহতারাম সমাজ সচেতনতায় দেশকে এগিয়ে নিতে এবং ইসলামের মৌলিক সড়কে সাধারণ মানুষকে পরিচালনার ক্ষেত্রে একজন ইমাম ও খতিব হিসেবে আপনার ভূমিকা প্রশংসনীয়। বিদ্যমান এই সংকটময় সময়েও দেশের মানুষের দরদী অভিভাবক আপনি। সমাজের সাধারণ মানুষ সব সংকটে আপনার মূল্যবান আলোচনার ওপর আস্থাশীল।

মাননীয় ইমাম ও খতিব! নিশ্চয় আপনি লক্ষ্য করেছেন, বিশ্বজুড়ে যে সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদের দাবানল শুরু হয়েছে তাতে পুড়ছে আমাদের প্রিয় মাতৃভূমি বাংলাদেশও। ইসলাম শান্তিএতে জঙ্গিবাদের কোনো স্থান নেই। সম্প্রতি সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদবিরোধী এক লাখ আলেম, মুফতি ও আইম্মার দস্তখত সম্বলিত মানবকল্যাণে শান্তির ফতোয়া প্রকাশ করেছে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা। এ ফতোয়া প্রকাশের ক্ষেত্রে যে মৌলিক বিষয়গুলো জাতির সামনে উপস্থাপন করা হয়েছে তা হলো— এক. ইসলামের প্রকৃতরূপ তুলে ধরতে হবে অর্থাৎ উগ্রতা নয় সহিষ্ণুতা, শত্রুতা নয় ভালোবাসা, হিংসা নয় সহমর্মিতা, প্রতিশোধপরায়ণতা নয় ক্ষমাশীলতা এবং বিদ্বেষ নয় সহৃদয়তা। দুই. যারা এখনো উগ্রবাদীদের প্রচারণায় বিভ্রান্ত হয়নি তাদেরকে রক্ষা করা। তিন. বিভ্রান্তির শিকার তরুণদের সে পথ থেকে ফিরিয়ে আনা। চার. মাদরাসা, মসজিদ এবং আইম্মা ও উলামায়ে কেরাম যে জঙ্গি বা সন্ত্রাসী নয় তা স্পষ্ট করা। পাঁচ. সাধারণ মানুষের হৃদয়ে ইসলামের পরিভাষাগুলোকে যথার্থ মর্যাদায় অধিষ্ঠিত করা।

আল্লাহর মেহেরবানি বাংলাদেশসহ সারা পৃথিবীতেই ফতোয়াটি আবেদন সৃষ্টি করতে পেরেছে। আমেরিকার কংগ্রেস, হাউস অব কমন্স লন্ডন, বাংলাদেশ পার্লামেন্টসহ সংবাদটি প্রিন্ট, ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সাড়া জাগাতে সক্ষম হয়েছে। আজ সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে যে জনগণ স্বতস্ফূর্তভাবে এগিয়ে এসেছে— এই ক্ষেত্রেও উক্ত ফতোয়াটির ভূমিকা অনস্বীকার্য। মূলত সর্বক্ষেত্রে আলেমদেরকেই সবার আগে সন্ত্রাস-জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে এগিয়ে আসা উচিত। কারণ আলেমরাই তো নবীজির উত্তরাধিকারী।

সম্মানিত ইমাম ও খতিব! সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদ নির্মূলের দাবিতে বাংলাদেশ জমিয়তুল উলামা ২৯ জুলাই ২০১৬ শুক্রবার জঙ্গিবাদবিরোধী দিবস ঘোষণা করেছে। আশা করি আপনি ঘোষিত এই কর্মসূচি পালনে এগিয়ে আসবেন। ২৯ জুলাই জঙ্গিবাদবিরোধী দিবসের কর্মসূচি: এক. জঙ্গিবাদ নির্মূলের জন্য আল্লাহর কাছে পানাহ চেয়ে দোয়া করার আহ্বান। দুই. শিক্ষার্থী ও মুসল্লিদের নিয়ে সন্ত্রাসজঙ্গিবাদবিরোধী মানববন্ধন করা। তিন. সন্ত্রাসজঙ্গিবাদবিরোধী আলোচনাসভা করা। চার.জঙ্গিবাদবিরোধী লিফলেট বিতরণ।

সম্মানিত ইমাম ও খতিব! আমরা সুন্দর ও নিরাপদ একটা দেশ চাই। আল্লাহর অফুরান রহমত¯স্নাত সবুজ এই বাংলার জমিনকে সবধরনের আক্রমণ থেকে রক্ষা করতে আলেমসমাজের ভূমিকা অনস্বীকার্য। তাই আসুন সন্ত্রাস ও জঙ্গিবাদে বিরুদ্ধে আমরা রুখে দাঁড়াই।