সিরিয়ার এই রক্তাক্ত শিশুর ছবি নিয়ে সারা বিশ্বে তোলপাড় -সোশ্যাল মিডিয়ায় তীব্র ঝড়

একটি অ্যাম্বুলেন্সের কমলা রঙের সিটে বসে রয়েছে চার থেকে পাঁচ বছরের একটি শিশু। পুরো শরীর ধুলোমাখা, মুখমণ্ডল রক্তাক্ত। সামনা সামনি দেখলে যে কেউ ভয়ে আঁতকে ওঠতে পারেন। নিজের অজান্তেই অশ্রুসিক্ত হয়ে উঠতে পারে চোখ। সিরিয়ায় বিমান হামলা থেকে বেঁচে যাওয়া একটি শিশুকে উদ্ধারের পর তোলা ভিডিও এবং ছবিটি পুরো বিশ্বে তোলপাড় করে দিয়েছে। খবর বিবিসির।

সম্প্রতি আলেপ্পোয় বিমান হামলার পর একটি বিধ্বস্ত ভবন থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। এরপর তার ভিডিও আর ছবি প্রকাশ করে সিরিয়ার বিদ্রহী গ্রুপ। সোশ্যাল মিডিয়াতে ভাইরাল আকারে ছড়িয়ে পড়েছে শিশুটির ছবি।

শিশুটির নাম ওমরান দাকনিশ(৫) বলে চিহ্নিত করেছেন স্থানীয় একজন চিকিৎসক।  শিশুটির মাথায় আঘাতের জন্য এখন চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। কিন্তু তার পরিবারের সদস্যদের কি হয়েছে, তা এখনো জানা যায়নি।

আলেপ্পোতে কয়েক সপ্তাহ ধরেই সিরিয়ান বিদ্রোহী বাহিনীর সঙ্গে  সরকারি বাহিনীর লড়াই এবং রাশিয়ান বিমান হামলা চলছে। সহিংসতায় কয়েকশ মানুষ নিহত হয়েছে বলে জানা গেছে।

বিদ্রোহীদের একটি মিডিয়া সেন্টার জানিয়েছে, বিদ্রোহী নিয়ন্ত্রিত আলেপ্পোর কোটের্জি জেলার একটি ভবনে রাশিয়ান বিমান হামলার পর ওই শিশুটিকে উদ্ধার করা হয়। সেসময় এই ছবিটি তোলা হয়। ওই হামলায় তিনজন নিহত আর ১২ জন আহত হয়।

ভিডিওতে দেখা যায়, একটি বিধ্বস্ত ভবন থেকে শিশুটিকে উদ্ধার করে আনা হচ্ছে। এরপর একটি অ্যাম্বুলেন্সের আসনে রক্ত আর ধুলোমাখা শিশুটিকে বসিয়ে দেয়া হচ্ছে।

এরপর সে খানিকক্ষণ শান্ত হয়ে বসে থাকে। তারপর নিজের মুখে হাত বুলিয়ে, হাতে রক্ত দেখতে পেয়ে চমকে যায়। এরপর সেই রক্ত সে অ্যাম্বুলেন্সের সিটে মুছে ফেলার চেষ্টা করে।

ওসামাব আবু আল-ইজ্জ নামের একজন চিকিৎসক বার্তা সংস্থা এপিকে জানিয়েছেন, শিশুটিকে স্থানীয় একটি হাসপাতালে আনা হয়। তবে তার মাথায় বড় ধরণের কোন জখম হয়নি। পরে শিশুটিকে হাসপাতাল থেকে ছেড়ে দেয়া হয়।

বিরোধী সিরিয়ান ন্যাশনাল কাউন্সিলের একজন সদস্য বলছেন, এই ছবিটি প্রমাণ করছে, সিরিয়ায় কি ভয়াবহতা চলছে।

সিরিয়া থেকে ইউরোপে যাবার চেষ্টার সময় সমুদ্রে ডুবে মারা যায় আলান কুর্দি। তুরস্কের তীরে তার পড়ে থাকার ছবিটি সারা বিশ্বকে হতবাক করে দিয়েছিল।