রাজধানীর কদমতলী থানার মিনাবাগ এলাকায় বাসায় ঢুকে সিনেমা স্টাইলে ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

দুর্বৃত্তদের হামলায় কদমতলী এলাকায় নিজ বাসায় খুন হয়েছে এক স্কুল ছাত্রী। চাপাতির আঘাতে গুরুতর আহত হয়েছেন নিহত সোহেলীর মা এবং ছোট বোন। পুলিশ বলেছে, হত্যাকাণ্ডের কারণ জানা না গেলেও, অপরাধীদের পরিচয় জানা গেছে।

রাজধানীর দক্ষিণ দনিয়ায় মিনাবাগের একটি বাসার দ্বিতীয় তলায় ভাড়া থাকতো ইতালী প্রবাসী মোহাম্মদ সেলিমের স্ত্রী ও দুই মেয়ে। বাড়ির দারোয়ান জানায়, সন্ধ্যা সাড়ে সাতটার দিকে খালার বাসা পরিচয় দিয়ে প্রবেশ করে দুই যুবক। ঘরের ভেতর মা-মেয়েকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় বড় মেয়ে সপ্তম শ্রেনীর ছাত্রী সোহেলীর।

বাড়ির দারোয়ান জানায়, দুই যুবক এসে খালার বাসায় যাবো বলে বাসায় প্রবেশ করে। এরপর আমি তালা লাগিয়ে নামাজ পড়ার জন্য বাইরে যাই। ফিরে আসলে তারা আমাকে গেট খুলে দিতে বলে। আমি না খুললে, তারা আমাকেও কোপ দেয়। আমি মাটিতে পড়ে যাই।

ঘটনা শেষে পালিয়ে যাওয়ার সময় কলাপসিপল গেটে তালা দেখে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে তালা ভাঙ্গার চেষ্টা করে দুর্বৃত্তরা। শব্দ শুনে আশপাশের লোকজন জড়ো হয়ে তালা ভেঙ্গে ভেতরে প্রবেশ করে। তবে ভিড়ের মধ্য থেকে কিভাবে ওই দুই যুবক পালিয়ে গেছে সে ব্যাপারে ধোঁয়াশা রয়েই গেছে।

ডিএমপি ওয়ারী জোনের ডিসি নুরুল ইসলাম জানান, তাদের সঙ্গে কি রিলেশন ছিলো, তা এখনও আমরা জানিনা। নিহতের মাকে জিজ্ঞাসাবাদের পর আমরা সব বলতে পারবো। ওই দুই যুবক পূর্ব পরিচিত ছিলো। তাদের নাম আমরা পেয়েছি। খুব তাড়াতাড়িই তাদের গ্রেফতার করতে পারবো।

জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাড়ির দারোয়ান এবং অপর একজনকে আটক করেছে পুলিশ। গুরুতর আহত অবস্থায় শিশু সোহেলীর মা এবং ছোট বোনকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

কদমতলী থানার ওসি কাজী ওয়াজেদ মিয়া যুগান্তরকে বলেন, ১৪৯২ দক্ষিণ দনিয়ার পাটেরবাগ আল মদিনা মসজিদ গলিতে ৬ তলা ভবন শিকদার ভিলার দ্বিতীয় তলায় থাকেন ইতালি প্রবাসী আবদুল হান্নান। গত মাসের মাঝামাঝি সময়ে তিনি দেশে বেড়াতে আসেন। প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে পাওয়া তথ্যের ভিত্তিতে ওসি ওয়াজেদ মিয়া বলেন, সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার কিছু পরে কয়েকজন দুর্বৃত্ত দ্বিতীয় তলার ওই ফ্ল্যাটে হানা দেয়। দুর্বৃত্তরা বাসায় প্রবেশের পরপরই শাহিদা মৃধা ডলি ও তার স্কুলপড়–য়া দুই মেয়েকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কোপাতে থাকে। তাদের চিৎকারে প্রতিবেশীরা ছুটে এলে দুর্বৃত্তরা দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় আশপাশের লোকজন ধাওয়া করলে দুর্বৃত্তরা জালাল আহমেদ নামে আরেকজনকে ছুরিকাঘাত করে পালিয়ে যায়। আহত জালাল আহমেদ নারায়নগঞ্জ বিআইডব্লিউটিএর উপ-প্রকৌশলী বলে জানা গেছে। ঘটনার সময় তিনি কর্মস্থল থেকে পাটেরবাগের বাসায় ফিরছিলেন। কারা এবং কি উদ্দেশ্যে এ ঘটনা ঘটিয়েছে তাৎক্ষণিকভাবে তা জানা যায়নি। বাসা থেকে কিছু খোয়া গেছে কিনা তাও জানাতে পারেননি গৃহকর্তা আবদুল হান্নান ওরফে সেলিম।

2 thoughts on “রাজধানীর কদমতলী থানার মিনাবাগ এলাকায় বাসায় ঢুকে সিনেমা স্টাইলে ষষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রীকে কুপিয়ে হত্যা

Leave a Reply

Your email address will not be published.