ওবামাই যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট!

অন্ধ নারী বাবা ভাঙ্গা ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, আমেরিকার ৪৪তম এবং সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট হবেন একজন আফ্রিকান-আমেরিকান। বারাক ওবামা একজন আফ্রিকান-আমেরিকান ও ৪৪তম প্রেসিডেন্ট।

বারাক ওবামাই যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট বলে ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন বুলগেরিয়ার আধ্যাত্মিক নারী বাবা ভাঙ্গা। গত মঙ্গলবারের নির্বাচনে ডোনাল্ড ট্রাম্প জয়ী হওয়ার পর ক্যালিফোর্নিয়া স্বাধীনতার ডাক দিয়েছে। তাহলে কি বাবা ভাঙ্গার সেই ভবিষ্যদ্বাণীই সত্যি প্রমাণ হতে চলেছে।

বাবা ভাঙ্গা ছিলেন বুলগেরিয়ার রহস্যময় ও আধ্যাত্মিক শক্তিসম্পন্ন অন্ধ নারী জ্যোতিষী। তিনি ১১ আগস্ট ১৯৯৬ মারা যান। তখন তার বয়স হয়েছিল ৮৫ বছর। তিনি তার জীবনের অধিকাংশ সময় কাটিয়েছেন বুলগেরিয়ার কুজহু পার্বত্য অঞ্চলের রুপিটি নামক স্থানে। বিশ্বের লাখ লাখ মানুষ বিশ্বাস করেন তিনি বিশেষ অলৌকিক ক্ষমতার অধিকারী ছিলেন। তাই তিনি যে ভবিষ্যদ্বাণী করেন তাই সত্যি হয়।

তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের টুইন টাওয়ারে হামলা হবে। পৃথিবীতে আইএস নামের এক বিশেষ জঙ্গিগোষ্ঠীর উত্থান হবে। এসবই ইতোমধ্যে সত্য প্রমাণিত হয়েছে। তিনি ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন যে, যুক্তরাষ্ট্রের ৪৪তম প্রেসিডেন্ট হবেন আফ্রিকান-আমেরিকান। আর বারাক ওবামাও একজন আফ্রিকান আমেরিকান। তখন তিনি এও বলেছিলেন যে, তিনিই হবেন যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট।

ভাঙ্গাবাবা ভাঙ্গার ভবিষ্যদ্বাণীতে যুক্তরাষ্ট্রের টু্ইন টাওয়াকে ‘দুটি ইস্পাত পাখি’ দ্বারা হামলার কথা বলা হয়েছিল। তিনি বলেছিলেন, দুটি ইস্পাতের পাখি ২০০১ সালে যুক্তরাষ্ট্র হামলা করবে

এক গবেষণায় বলা হয়েছে, বাবা ভাঙ্গার ভবিষ্যদ্বাণীর প্রায় ৮৫ শতাংশই সত্য প্রমাণিত হয়। আর সে কারণেই ডোনাল্ড ট্রাম্প বিজয়ী হওয়ায় সারা বিশ্ব চিন্তিত। তাহলে কি যুক্তরাষ্ট্র ভেঙে যাবে? আর বাবা ভাঙ্গার ভবিষ্যদ্বাণী সত্যি প্রমাণিত হবে?

বাবা ভাঙ্গার ভবিষ্যদ্বাণী সত্য হওয়ার অনেকগুলো কারণ আছে। তার মধ্যে প্রথম হলো বাবা ভাঙ্গা মারা গেছেন ১৯৯৬ সালে। আর বারাক ওবামা প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হয়েছেন ২০০৯ সালে। তিনি যদি সত্যিই না জেনে থাকেন তাহলে কীভাবে বললেন যে, যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হবেন আফ্রিকান আমেরিকান?

তাই বিশ্ব আজ তাকিয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্রের ভাগ্যে কি ঘটতে যাচ্ছে সেদিকে। সেই সাথে বিশ্ব পরিস্থিতিও কোনদিকে যাবে তার দিকে। নাকি আরেকটি বিশ্বযুদ্ধ হওয়ার সম্ভাবনা দেখা দিচ্ছে।

বাবা ভাঙ্গা যুক্তরাষ্ট্রের টু্ইন টাওয়ার হামলা সম্পর্কে বলেছিলেন, ‘দুটি ইস্পাত পাখি’ দ্বারা যুক্তরাষ্ট্রে হামলা হবে এবং এটি হবে ২০০১ সালে। আর সত্যিই টুইন টাওয়ার হামলার মধ্য দিয়ে তার ভবিষ্যদ্বাণী সত্য প্রমাণিত হয়। ২০০৪ সালের সুনামিকে তিনি ‘বিশাল ঢেউ’ হিসেবে অবিহিত করেছিলেন। তিনি বলেছিলেন ২০০৪ সালে বিশাল ঢেউ আক্রমণ করবে। এছাড়া তিনি আরো অনেক ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন যা আজ প্রমাণিত হওয়ার অপেক্ষায়।

ভাঙ্গাভক্তদের মাঝে বাবা ভাঙ্গা

বাবা ভাঙ্গার ১৩টি ভবিষ্যদ্বাণী-

বারাক ওবামা যুক্তরাষ্ট্রের সর্বশেষ প্রেসিডেন্ট : মৃত্যুর আগে তিনি বলেছিলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ৪৪তম প্রেসিডেন্ট হবেন আফ্রিকান-আমেরিকান। এরপর যুক্তরাষ্ট্রে আর কোনো প্রেসিডেন্ট আসবে না। অর্থ্যাৎ যুক্তরাষ্ট্র ভেঙে যাবে। আর বারাক ওবামাই যুক্তরাষ্ট্রের ৪৪তম প্রেসিডেন্ট এবং তিনি একজন আফ্রিকান-আমেরিকান। তিনি আরো বলেছিলেন, ওবামার শাসনামলে অর্থনৈতিক ঘাটতি দেখা দেবে এবং উত্তর ও দক্ষিণ আমেরিকার মধ্যে গৃহযুদ্ধ বাঁধবে। আর এ গৃহযুদ্ধেই আলাদা হয়ে যাবে প্রত্যেকটি রাষ্ট্র।

২০১৬ সালে ইউরোপ ভেঙে যাবে : তিনি বলেছিলেন, ২০১৬ সাল নাগাদ ইউরোপ ভেঙে আলাদা হয়ে যাবে। সেখানে দুটি পক্ষ তৈরি হবে। আর আজ ব্রিটেন ইউরোপীয় ইউনিয়ন থেকে বের হয়ে গেছে এবং সেখানে অস্থিরতা বিরাজ করছে। তিনি আরো বলেছিলেন, ইউরোপের শত্রুপক্ষ সেখানে পারমাণবিক বোমা দিয়ে আক্রমণ করবে। তার এই ভবিষ্যদ্বাণীটি বর্তমানে প্রমাণিত হওয়ার অপেক্ষায়।

মুসলিমরা ইউরোপ হামলা করবে : তিনি আরো ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, মুসলিমরা ইউরোপ আক্রমণ করে ইউরোপ দখল করবে এবং ইউরোপের বিভিন্ন স্থানে ছড়িয়ে পড়বে এবং অনেকদিন ইউরোপ শাসন করবে। তিনি আরো বলেছেন, সিরিয়ায় সবচেয়ে বড় মুসলিম যুদ্ধ হবে। সিরিয়ায় বর্তমানে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ চলছে।

চীন হবে নতুন সুপার পাওয়ার : ওই আধ্যাত্মিক নারী ভবিষ্যদ্বাণী করেছিলেন, ২০১৮ সাল নাগাদ চীন হবে নতুন সুপার পাওয়ার। আর এদিকে ইন্টারন্যাশনাল মানিটরি ফান্ডও ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, চীন হবে নতুন সুপার পাওয়ার। সে হিসেবে হইতো আর কয়েক বছর পর চীন বিশ্বকে শাসন করবে। তিনি এ কথাগুলো বলেছিলেন তার মৃত্যুর আগে অর্থ্যৎ ১৯৯৬ সালেরও আগে। আজ তা সত্য প্রমাণিত হচ্ছে।

ক্ষুধা দারিদ্র্য থাকবে না : বাবা ভাঙ্গা আরো বলেছিলেন, ২০২৫-২০২৮ সালের মধ্যে পৃথিবী থেকে ক্ষুধা দারিদ্র্য উধাও হয়ে যাবে। অর্থ্যাৎ কোনো মানুষ না খেয়ে মরবে না। দেখা যাক, তার এ ভবিষ্যদ্বাণীটি সত্য হয় কিনা।

শুক্র গ্রহ জয় : বাবা ভাঙ্গা বলেছেন, মানুষ নতুন পাওয়ার অ্যানার্জি খুঁজতে শুক্রে অবতরণ করবে। সেখানে তারা বসতিও স্থাপন করতে পারে।

ইসলামি খেলাফতের রাজধানী হবে রোম : তিনি ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, ২০৪৩ সাল নাগাদ রোম হবে ইসলামিক ফেলাফতের রাজধানী। তখন ইউরোপ পুরোপুরি মুসলমানদের শাসনে থাকবে।

ভাঙ্গাবর্তমানে পৃথিবীর মেরু এলাকাগুলোতে প্রচণ্ড পরিমাণে বরফ গলার প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে 

বরফ মারাত্মকভাবে গলা শুরু করবে : ২০৪৫ সালের কাছাকাছি মারাত্মক হারে বরফ গলা শুরু করবে। তখন অনেক দেশ পানির নিচে তলিয়ে যাবে এবং মানুষ তখন পানির নিচে বসবাস করার প্রযু্ক্তিও আবিষ্কার করে ফেলবে।

মানুষের ক্লোনিং সহজ হবে : মানুষের ক্লোনিং খুবই সহজ হয়ে যাবে একসময়। আর ক্লোনিং সহজ হওয়ায় চিকিৎসা ব্যবস্থাও খুব সহজ হবে। ডাক্তাররা এক মুহূর্তে যেকোনো অঙ্গ কাটা ছেঁড়া করে আবার জোড়া লাগাতে পারবে।

যুক্তরাষ্ট্রের ইউরোপ আক্রমণ : ২০৬৬ সাল নাগাদ আবার যুক্তরাষ্ট্র একসঙ্গে যুক্ত হবে এবং মুসলমানদের অধিনে থাকা ইউরোপে হামলা করবে। তারা আবার খ্রিষ্টান ধর্মাবম্বলীদের দ্বারা ইউরোপ শাসন করার জন্য প্রাণপণ চেষ্টা করবে।

সাম্যবাদ ফিরে আসবে : ২০৭৬ সাল নাগাদ পৃথিবীতে আবার সাম্যবাদ ফিরে আসবে এবং সারা পৃথিবীতে সাম্যবাদ চর্চা হবে। এই সাম্যবাদ পৃথিবী ধ্বংস হওয়ার আগ পর্যন্ত টিকে থাকবে।

পানির নিচে বসবাস : ২১৩০ সাল নাগাদ মানুষ পানির নিচে বসবাস করতে অভ্যস্থ হয়ে যাবে। পানির নিচে গড়ে উঠবে বিশ্ব। এবং এ কাজে সাহায্য করবে এলিয়েনরা। কারণ এলিয়েনরা অনেক আগে থেকে উচ্চ প্রযুক্তি সম্পূর্ণ।

ভাঙ্গাবাবা ভাঙ্গা ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, ৩৭৯৭ সালে পৃথিবী ধ্বংস হবে

পৃথিবী ধ্বংস : বাবা ভাঙ্গা ভবিষ্যদ্বাণী করেছেন, ৩৭৯৭ সালে পৃথিবী ধ্বংস হয়ে যাবে। তবে চিন্তার কোনো কারণ নেই, মানুষ তখন অন্যগ্রহের সন্ধানে ছুটে চলবে এবং নতুন গ্রহ আবিষ্কার করে সেখানে বসবাস শুরু করবে।