ঝোড়ো হাওয়ায় উড়ে গেল কাচের ব্রিজের প্যানেল, সেতু থেকে ঝুলন্ত ব্যক্তির ভাইরাল ছবি আতঙ্ক জাগিয়েছে বিশ্বে!

 যা দেখা যাচ্ছে, চিনারা যদি দেশের বিখ্যাত প্রাচীরটিও কাচ দিয়ে তৈরি করত, তাহলে তা আর বিশ্বের আশ্চর্যের তালিকায় ঠাঁই পেত না! অথবা স্রেফ দুর্ঘটনার নিরিখে কুখ্যাত হয়ে থাকত বিশ্বে!

এই প্রসঙ্গ উত্থাপনের কারণ একটাই- কাগজ, লাল কালি, ঘুড়ি এবং আরও অনেক কিছুর মতো কাচও তো প্রথম জন্ম নিয়েছে চিনদেশেই! আবার অতীত ছেড়ে যদি সমসময়ে নজর ফেলতে হয়, তাহলে দেখা যাবে যে সেই কাচের ব্যবহার করে তৈরি অসংখ্য সেতু, ওয়াকওয়ে বর্তমানে চিনা পর্যটনের হাতিয়ার হয়ে উঠেছে। এই কাচের সেতুতে পদচারণা এক দিকে যেমন মনে আতঙ্ক জাগায়, তেমনই তা মুগ্ধও করে।

কিন্তু সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় যে ছবিটি ভাইরাল হয়েছে, তা চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিচ্ছে যে চিনের সরকার এবং পর্যটকের দুর্ভাগ্যবশত কাচের সেতুতে পদচারণা জনৈক ব্যক্তির পক্ষে কেবলই আতঙ্কের স্মৃতি হয়ে থেকে গেল। ওই দেশের জিনহুয়া নিউজ এজেন্সির রিপোর্ট অনুযায়ী জনৈক ব্যক্তি এক কাচের সেতুর প্যানেল ঝোড়ো হাওয়ায় উড়ে যাওয়ায় সেতু থেকে ঝুলছিলেন! ঘটনাটি ঘটেছে উত্তর-পূর্ব চিনের লংজিং শহরের নিকটবর্তী পিয়ান পর্বতের ৩৩০ ফুট উচ্চতায় অবস্থিত একটি কাচ দিয়ে তৈরি সেতুতে।

সংবাদসংস্থা  জানিয়েছে যে ওই দিন ওই এলাকায় ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে ঝোড়ো হাওয়া বইছিল, তাতেই ওই ব্রিজের কাচের প্যানেল উড়ে গিয়েছে! আর তারই জেরে পা ফসকে ওই ব্যক্তি সেতু থেকে ঝুলতে থাকেন। খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে হাজির হয় দমকলও। অবশ্য ততক্ষণে স্থানীয় তত্ত্বাবধায়কের সাহায্যে ওই ব্যক্তি নিচে নেমে আসতে সক্ষম হন। সত্বর তাঁকে নিয়ে যাওয়া হয় নিকটবর্তী হাসপাতালে। ডাক্তারেরা পরীক্ষা করে জানিয়েছেন যে তাঁর শরীরে কোনও চোট লাগেনি, মানসিক দিক থেকেও সুস্থ আছেন ওই পর্যটক।

কিন্তু সমালোচনা রেহাই দিচ্ছে না সরকারকে। লংজিং শহরের সোশ্যাল মিডিয়া পেজ মারফত জানা যাচ্ছে যে আপাতত প্রশাসনের তরফে ওই সেতু বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু প্রশ্ন উঠছে যে প্রতিকূল আবহাওয়ার মধ্যে কী ভাবেই বা ওই ব্যক্তিকে সেতুতে ঘোরাফেরার অনুমতি দেওয়া হল!

প্রসঙ্গত, ২০১৮ সালে দুর্ঘটনাপ্রবণ হওয়ার কারণে চিনের হেইবেই প্রদেশের ৩২টি কাচের সেতু বন্ধ করে দেওয়া হয়। ২০১৯ সালে গুয়াংসি প্রদেশের কাচের সেতু ভেঙে ৬ জন আহত এবং ১ জন নিহত হন। ২০১৬ সালেও জাংজিয়াজিয়ে প্রদেশের কাচের সেতু থেকে পড়ে গিয়ে দুর্ঘটনার খবর সংবাদমাধ্যমের শিরোনামে উঠে এসেছিল!