ভ্রমনে এসে ইসলাম গ্রহণ করলেন এক চীনা যুবক

ভ্রমনে এসে ইসলাম গ্রহণ করলেন এক চীনা যুবক
ভ্রমনে এসে ইসলাম গ্রহণ করলেন এক চীনা যুবক

#islam:ইরানের কাশান অঞ্চলের অদূরে ইসলামের চতুর্থ খলিফা হজরত আলীর (রা.) এক পুত্রের মাজারে এসে এক চীনা যুবক ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। কাশানের ‘অরান ও বিদগেল’ নামক শহরে কয়েক দিন আগে এ ঘটনা ঘটেছে।

শুদুশন নামের ওই চীনা যুবক ইসলাম ধর্ম সম্পর্কে পরিচিতি অর্জনের পর হজরত মুহাম্মদ হেলাল বিন আলীর পবিত্র মাজারে এসে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন। ইসলাম ধর্ম গ্রহণের পর নিজের অনুভূতির কথা জানাতে গিয়ে ওই চীনা পর্যটক বলেছেন, এখন আমার জীবনের এক নতুন অধ্যায় শুরু হল।

শুদুশন কিছুকাল আগে ইরানের ইস্পাহান প্রদেশ এবং অরান ও বিদগেল শহর সফর করেন। তিনি অরান ও বিদগেল শহরে এসে হেলাল বিন আলীর (আ.) পবিত্র মাজারে স্থানীয় জনগণের ধর্মীয় রীতি-নীতি পর্যবেক্ষণ করেন। ২৩ বছর বয়সী এ নওমুসলিম নিজের নতুন নাম রেখেছেন মুহাম্মদ আলী।

 

মহান আল্লাহর ওপর ভরসা করার বিষয় ও বিশ্বনবী হজরত মুহাম্মদের (সা.) পবিত্র আহলে বাইতের প্রতি এ অঞ্চলের জনগণের গভীর ভালোবাসা এবং মহানবীর (সা.) পবিত্র বংশধরদের ওয়াসিলা ধরে মোনাজাত করার বিষয়গুলো তাকে মুগ্ধ করেছে।

চীনে ফিরে যাওয়ার সময় তিনি নিজ পরিবারের জন্য সবচেয়ে ভালো উপহার হিসেবে পবিত্র কোরআনের একটি কপি সংগ্রহ করেছেন।

হেলাল বিন আলী ছিলেন বিশ্বনবীর (সা.) মেয়ের ঘরের নাতনির পুত্র। অন্যদিকে তিনি সরাসরি হজরত আলীর (রা.) পুত্র। তিনি হেলালে আলী বা মুহাম্মদ হেলাল নামেও খ্যাত ছিলেন। তার মা ছিলেন হজরত আলীর (রা.) স্ত্রী ইমামা বিনতে জাইনাব, যিনি রাসুলের (সা.) মেয়ে হজরত জাইনাবের (স্বামী আবুল আ’স বিন রাবি’ইর) কন্যা। হজরত ফাতিমা জাহরা (রা.) ওসিয়ত অনুযায়ী তার মৃত্যুর পর ইমামা বিনতে জাইনাবকে বিয়ে করেন হজরত আলী। হেলালের জন্ম হয়েছিল ১ রমজান ১৪ হিজরি। মারা যান ৬৪ হিজরির ২৮ রমজান।