সাকিব বিহীন কলকাতার পরাজয়

কেকেআর

 আইপিএল এবারের আসরে নিজেদের চতুর্থ ম্যাচে চেন্নাই সুপার কিংসের বিপক্ষে ১৮ রানে হেরেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স ।

২১ এপ্রিল টস হেরে আগে ব্যাট করতে নেমে ফাফ ডু প্লেসিসের ঝড়ো ব্যাটে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ২২০ রানের পাহাড় গড়ে চেন্নাই সুপার কিংস।

দলের পক্ষে প্লেসিস সর্বোচ্চ ৯৫* রানের ইনিংস খেলেন। মাত্র ৪২ বলে খেলা তার ইনিংসটি ৪টি ছক্কা ও ৯টি চারে সাজানো ছিল। এছাড়া আরেক ওপেনার রুতুরাজ গুয়েকওয়াড ৪২ বলে ৪টি ছক্কা ও ৬টি চারে ৬৪ রানের ইনিংস উপহার দেন। মঈন আলী ১২ বলে ২৫ (২টি ছক্কা ও সমান চার) এবং অধিনায়ক মাহেন্দ্র সিং ধোনি ৮ বলে করেন ১৭ রান। এদিন কেকেআরের বোলারদের কে খুব খাটিয়েছে চেন্নাইএর ফাফ ডুপ্লেসিস এবং ধোনীরা।

কেকেআররের পক্ষে সুনিল নারিন, আন্দ্রে রাসেল ও বরুন চক্রবর্তী প্রত্যেকেই একটি করে উইকেট নেন।

জবাব দিতে নেমে সাকিব আল হাসানবিহীন কলকাতা ৩১ রানের মধ্যেই প্রথম সারির পাঁচ ব্যাটারকে হারিয়ে ব্যাকফুটে চলে যায়। দিনেশ কার্তিক, আন্দ্রে রাসেল ও পেট কামিন্সের ব্যাটে ভর করে ২০২ রান করে কলকাতা। নির্ধারিত ২০ ওভারের ৫ বল বাকি থাকতেই অলআউট হয় কেকেআর।

কামিন্স ৩৪ বলে ৬টি ছক্কা ও ৪টি চারে ৬৬*, রাসেল ২২ বলে ৬টি ছক্কা ও ৩টি চারে ৫৪ এবং কার্তিক ২৪ বলে ২টি ছক্কা ও ৪টি চারের সাহায্যে ৪০ রানের ইনিংস খেলেন। এই তিন জন ছাড়া কেকেআরের আর কোনো ব্যাটারই দুই অংকের ঘর স্পর্শ করতে পারেননি।

চেন্নাইয়ের হয়ে ডোয়াইন ব্রাভোর জায়গায় একাদশে জায়গা করে নেওয়া এনগিদি ৪ ওভারে ২৮ রান খরচায় ৩টি, দীপক চাহার ৪ ওভারে ২৯ রান দিয়ে ৪টি এবং সবচেয়ে খরুচে বোলার স্যাম কুরান ৪ ওভারে ৫৮ রান দিয়ে ১ উইকেট শিকার করেন।

এই ম্যাচে একাদশের বাইরে রাখা হয় সাকিব আল হাসানকে। প্রথম তিন ম্যাচে সুযোগ পেয়ে ভালো কিছু করে দেখাতে পারেননি সাকিব আল হাসান। ফলে একাদশ থেকে জায়গা হারান বাংলাদেশের এই অলরাউন্ডার। তার জায়গায় দলে ফেরেন সুনীল নারিন। কিন্তু তাতেও জয়ের দেখা পেল না কেকেআর।

চার ম্যাচ খেলে ৩টিতেই হেরেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।